Home / Forex Broker Types

Forex Broker Types

ফরেক্স ব্রোকার

ফরেক্স ট্রেডিং সাধারণত ব্রোকারের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকে। ব্রোকার হচ্ছে একটি কোম্পানি যে আপনার মতো স্বতন্ত্র ব্যক্তিকে ইন্টারমার্কেটে এক্সেস প্রদান করবে যেখানে সকল ট্রেডের কার্যকলাপ সম্পন্ন হয়। অন্য কথায়, ব্রোকার আপনাকে বিশেষ সফটওয়্যার প্রদান করবে, যেখানে আপনি লাইভ কারেন্সি কোট দেখতে পাবেন এবং কারেন্সিতে মাত্র কয়েক ক্লিকে বাই/সেল অর্ডার প্লেস করতে পারবেন। যখন ট্রেড বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেবেন, তখন ব্রোকার ইন্টারব্যাংক কারেন্সি মার্কেটে আপনার পজিশন ক্লোজ করে দেবে এবং লাভ অথবা লস আপানর অ্যাকাউন্টে ক্রেডিট করে দেবে। আপনার পছন্দের ফরেক্স ব্রোকারে অ্যাকাউন্ট খুলতে এবং ট্রেডিং শুরু করতে মাত্র কয়েক মিনিট লাগে। সেবার প্রদানের পারিশ্রমিক হিসেবে, ট্রেডার ব্রোকারকে স্প্রেড অথবা কমিশন প্রদান করে থাকে।
ব্রোকার বাছাইয়ের সময়, কোম্পানির খ্যাতি, বয়স এবং রেগুলেশনের দিকে বিশেষ নজর দেবেন। এর সাথে, ব্রোকার যে ট্রেডের শর্তাবলী প্রদান করছে তাও গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। নির্দিষ্টভাবে, এক্সিকিউশন স্প্রীড, স্প্রেড, সোয়াপ এবং কমিশন তুলনা করে দেখবেন।
ডেমো অ্যাকাউন্ট
ফরেক্সে শুরুতেই আপনাকে নিজস্ব অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে না। প্রায় সকল ব্রোকারই চর্চার জন্য ডেমো অ্যাকাউন্ট প্রদান করে থাকে, যা দিয়ে আপনি ভার্চুয়াল ব্যালেন্স দিয়ে রিয়েল মার্কেট ডাটা দিয়ে ফরেক্স মার্কেটে ট্রেড করতে পারবেন। কীভাবে ট্রেড করতে হয় তা শেখার জন্য ডেমো অ্যাকাউন্ট একটি গুরুত্বপূর্ণ ট্যুল। আপনি শুধুমাত্র বাটনগুলো চেপে চর্চা করতে পারেন আর খুব দ্রুত সবকিছু নিজের আয়ত্তে আনতে পারেন। রিয়েল ট্রেড শুরু করার আগে অবশ্যই আপনাকে ডেমো অ্যাকাউন্টে প্র্যাকটিস করতে হবে। কন্টিনিউ টানা কমপক্ষে ৩ মাস প্রফিট করলে তখন রিয়েল ট্রেডিং শুরু করতে পারেন। তবে তার পাশাপাশি ডেমো অ্যাকাউন্টও থাকা ভালো।

ব্রোকারের শ্রেণিভেদ : সুবিধা অসুবিধা

যারা ফরেক্স ট্রেড করেন তারা মূলত যে কোন একটি ব্রোকারের মাধ্যমেই ওয়ার্ল্ড মার্কেট থেকে বাই-সেল করে থাকেন।
নরমালি আমরা যে কয়েক টাইপের ব্রোকারে ট্রেড করি সেগুলাতে কয়েক টাইপের ট্র্রেডিং একাউন্ট আছে।
আবার কিছু ব্রোকার আছে যেগুলাতে একটাই একাউন্ট টাইপ আছে। আসুন সেসব সম্পর্কে একটু ধারণা নেই।
1. STP Forex brokers
2. ECN Forex Brokers
3. Forex Market Makers
1. STP Forex brokers
Straight Through Processing (STP): এই টাইপের ব্রোকারগুলো মূলত ট্রেডারদের অর্ডার কোন ডিলিং ডেস্ক ছাড়াই সরাসরি লিকুইডিটি প্রোভাইডারে (ব্যাংক এবং বড় ব্রোকারে) সেন্ড করে দেয়। সুতরাং এতে অর্ডার দ্রুত এক্সিকিউশন হয়, অতিরিক্ত সময় লাগেনা এবং কোন রিকোটও থাকেনা।
STP এর প্রধানতম সুবিধা হচ্ছে এতে ট্রেডারের লস হলে ব্রোকারের কোন প্রফিট হয়না। ট্রেডার লাভ করুক বা লস করুক সেটাতে ব্রোকারের কোন মাথাব্যথা নেই। ব্রোকারের লাভ হল শুধু স্প্রেড এবং কমিশন। একেকটি ব্রোকারের অনেকগুলা লিকুইডিটি প্রোভাইডার থাকে। যাদের যত বেশি লিকুইডিটি প্রোভাইডার সেটাতেই ট্রেডাররা লাভবান হয় এক্সিকিউশন দ্রুততার সাথে হয় ডিপ লিকুইডিটি ফিড এর কারণে।
2. ECN Forex Brokers
ECN stands for ‘Electronic Communication Network’: এখানে ট্রেডার সরাসরি ওয়ার্ল্ড ফাইনান্সিয়াল মার্কেটে একজন অংশগ্রহণকারী হিসেবে সরাসরি যোগ দেয়। ট্রেডার নিজেই সরাসরি অন্যান্য অংশগ্রহণকারী যেমন- ব্যাংক, হেজ ফান্ড, বিগ ট্রেডারসহ অন্যান্য ফাইনান্সিয়াল ফার্মগুলার সাথে সরাসরি যোগদান করে। এখানে ট্রেডারের বিপরীতে ব্রোকার ট্রেড নিতে পারেনা। এবং এখানে ট্রেডারের লাভ বা লস যাই হোকনা কেন ব্রোকারের কোন লাভ-ক্ষতি নেই। ব্রোকার শুধুমাত্র কমিশন বা স্প্রেডটাই পায়। ট্রেডাররা মূলত হাইস্পীডি এক্সিকিউশন, নো রিকোট এবং ডিপ লিকুইডিটির জন্যই এখানে ট্রেড করে। মূলত স্কাল্পার এবং এবং নিউজ ট্রেডারদের এই টাইপের ব্রোকার পছন্দ। তবে পিউর ECN এ mt4 ব্যবহার হয়না। cTrader, Currenex’s PowerTrader সহ ECN এর জন্য আলাদা কিছু টার্মিনাল আছে।
একটা কথা মনে রাখবেন, STP/ ECN এ লিভারেজ কম থাকবে, ব্রোকার কোন বোনাস দিতে পারবেনা। যারা সত্যিকারের সিরিয়াস ট্রেডার তারা STP /ECN পছন্দ করে থাকে।
3. Market Makers বা MM Brokers
আমরা যারা নরমালি ক্ষুদ্র ট্রেডার তারা বেশিরভাগই মার্কেট মেকারে ট্রেড করি। এবং একটি মজার বিষয় ৯০% ব্রোকারই মার্কেট মেকার।
মার্কেট মেকাররা মূলত প্রফিট করে থাকে দুভাবে। প্রথমত স্প্রেড দিয়ে প্রফিট, দ্বিতীয়ত ট্রেডারের ট্রেডের বিপরীতে ট্রেড নিয়ে। আমরা যখন বাই করি তারা তখন সেল নেয়, আবার আমরা যখন সেল করি তখন তারা বাই নেয়। তারা মূলত বিড-আস্ক এর যে তারতম্য সেখান থেকেই প্রফিট করে থাকে। কারণ আমাদের এবং তাদের বিড আস্কে ১-২ পিপস কম বেশী থাকে।
মার্কেট মেকার অলওয়েজ প্রফিটেই থাকে। কারণ একটি সত্যি কথা হল ৯০% নতুন ট্রেডারের হাতেখড়িই হয়ে থাকে মার্কেট মেকার ব্রোকারে। আর এটা সবাই জানি ৯০% নতুন ট্রেডারই লস করে। তার মানে তাদের লস ট্রেডের বিপরীতে ব্রোকারের উল্টা ট্রেড থাকে যেটা প্রফিটে থাকে। তার মানে আপনি লস করলেই ব্রোকার লাভ করবে। এভাবে তাদের লাভের অংকটা বেড়ে যায়। তাই বলে এটা ভাববেন না যে, ব্রোকার আপনাকে লস করাচ্ছে। আসলে লস আপনি নিজের অনভিজ্ঞতার কারণেই করছেন কিন্তু ব্রোকার মার্কেট মেকিং এর কারণে আপনার লস থেকে উপকৃত হচ্ছে। সে আপনাকে লস করিয়ে দিচ্ছেনা। আপনি নিজেই নিজের কারণে লস করছেন। কিন্তু যেহেতু আপনার ট্রেডের এগেইনেস্টে তারাও উল্টা ট্রেড করেছে তাই তারা প্রফিটেই ট্রেডটি ক্লোজ করছে।
অনেকে আবার লস করে মার্কেট মেকারকে দোষ দেয়। এটাও ঠিক না, কারণ মার্কেট মেকার এর চার্ট আর নন মার্কেট মেকারের চার্ট একই। মার্কেট মেকারতো আর আলাদা চার্ট ব্যবহার করেনা। হ্যাঁ কিছু ব্রোকার ২-৫ পিপ ম্যানিপুলেট করে সেটা আলাদা কথা। কিন্তু মেইন মার্কেট রেট কিন্তু একই।
মার্কেট মেকারে আপনাকে হাই লিভারেজ ১:২০০০ পর্যন্ত এমনকি আনলিমিটেড লিভারেজ অফার করে থাকে। তারা ১০০% পর্যন্ত বোনাস দিতে পারে। STP/ ECN ব্রোকার তা দিতে পারবেনা।
মার্কেট মেকার ব্রোকার স্লিপেজ, রিকোট, সামান্য পিপস ম্যানিপুলেট, স্টপলস হিট করানোসহ কিছু কাজ করতে পারে; যেটা সত্যিকারের STP/ECN ব্রোকার পারে না বা করে না।
তাই আপনার ট্রেডের ধরণ দেখেই আপনি আপনার একাউন্ট এর শ্রেণি ভাগ করুন।
প্রায় বেশিরভাগ রেগুলেটেড ব্রোকারেই STP/ ECN এবং মার্কেট মেকার দুই প্রকারের একাউন্টই থাকে।
তবে যাদের একাউন্টে ডিপোজিট কম তাদের মার্কেট মেকার ছাড়া কোনো গতি নেই।
আর আপনার ফান্ড যদি অনেক বিশাল হয় তাহলে আপনার জন্য STP/ ECN ভাল বলে আমি মনে করি।

Language »